বিহার সীমান্তে ফের উত্তেজনা, সন্তান-সহ ভারতীয় যুবতীকে পণবন্দি করল নেপালের পুলিশ - SAIKOTBHUMI

Breaking

Saturday, July 25, 2020

বিহার সীমান্তে ফের উত্তেজনা, সন্তান-সহ ভারতীয় যুবতীকে পণবন্দি করল নেপালের পুলিশ



সৈকতভূমি : নেপালের পুলিশ কর্মীরা সন্তান-সহ এক ভারতীয় যুবতীকে পণবন্দি করায় প্রবল উত্তেজনা ছড়াল বিহার সীমান্তে। শুধু তাই নয়, এই নিয়ে বচসার সময় নেপালের পুলিশ গুলিও চালায় বলে জানা গিয়েছে। চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছে বিহারের পূর্ব চম্পারণ জেলার গোধাশান থানার অন্তর্গত খারসালওয়া এলাকায়।
                              Click on Saikotbhumi Epaper,Date-25.07.2020

                     স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, শুক্রবার খারসালওয়া এলাকার বাসিন্দা ওই যুবতী সন্তানকে সঙ্গে নিয়ে ভারত-নেপাল সীমান্তের কাছাকাছি জায়গায় ঘাস কাটছিলেন। আচমকা সেখানে হাজির হয় নেপাল পুলিশের কিছু কর্মী। ওই যুবতীকে ঘাস কাটতে বারণ করে। যুবতীটি তাদের কথার প্রতিবাদ জানিয়ে বলেন, তিনি ভারতীয় ভূখণ্ডের মধ্যেই রয়েছেন। এই কথা শুনেই ওই পুলিশকর্মীরা তাঁকে বেধড়ক মারধর করে। তারপর সন্তান-সহ তাঁকে নেপালের সীমান্তের মধ্যে থাকা পুলিশ পোস্ট তুলে নিয়ে যায়।

               এদিকে এই ঘটনার খবর ছড়িয়ে পড়তেই বিহারের খারসালওয়া এলাকার মানুষ সীমান্তের কাছে গিয়ে প্রতিবাদ জানাতে থাকেন। শুরু হয় তুমুল গন্ডগোল। পরিস্থিতি ভয়াবহ হয়ে উঠছে দেখে নেপালের পুলিশকর্মীরা গুলিও চালায় বলে অভিযোগ। খবর পেয়ে পূর্ব চম্পারণের পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ আনে ও সন্তান-সহ যুবতীকে উদ্ধার করে।

            এপ্রসঙ্গে পূর্ব চম্পারণের পুলিশ সুপার নবীনচন্দ্র ঝা বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে ওই যুবতী ও তাঁর সন্তানকে উদ্ধার করা হয়েছে। বিষয়টিকে কেন্দ্র করে এলাকায় প্রচণ্ড উত্তেজনা রয়েছে। কেন ওই মহিলাকে পণবন্দি করা হয়েছিল তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।


আরও পড়ুন - দেশের মডেল হোক বাংলার ‘সেফ হোম’, মত ICMR কর্তার




Pages