মা ও মেয়ে খুনের ঘটনায় চাঞ্চল্যকর তথ্য পুলিশের হাতে - SAIKOTBHUMI

Breaking

Wednesday, March 4, 2020

মা ও মেয়ে খুনের ঘটনায় চাঞ্চল্যকর তথ্য পুলিশের হাতে



হলদিয়া :  হলদিয়ায় মা-মেয়েকে পুড়িয়ে মারার ঘটনার তদন্তে জেরায় বিস্ফোরক তথ্য হাতে পেলেন তদন্তকারীরা। পুলিস সূত্রে খবর, রিয়ার মায়ের সঙ্গেও সম্পর্ক ছিল অভিযুক্তের। হলদিয়ার ভাড়াবাড়িতে সাদ্দাম ও রিয়ার বিয়ের শংসাপত্রও উদ্ধার করা হয়েছে। তদন্তকারীদের ধারণা, মায়ের ব্ল্যাকমেইল থেকে মুক্তি পেতে তাঁদের খুন করেছে অভিযুক্ত সাদ্দাম।



ত্রিকোণ প্রেমের কারণেই কি খুন হলেন মা-মেয়ে? হলদিয়ার ঘটনার তদন্ত নেমে তেমনই প্রাথমিকভাবে মনে করছেন তদন্তকারীরা। পুলিস সূত্রের খবর, হলদিয়ার ভাড়াবাড়ি থেকে উদ্ধার হয়েছে সাদ্দাম ও রিয়ার বিয়ের শংসাপত্র। খোঁজ মিলেছে একটি ডায়েরির। ওই শংসাপত্রটি আসল বলে জানতে পেরেছে পুলিস। সেই অনুযায়ী, ২০১৮ সালে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়েছিল সাদ্দাম ও রিয়া। ডায়েরিতে লেখাগুলি কাটাকুটি করা হয়েছে। তাও উদ্ধার করতে পেরেছেন তদন্তকারীরা। পুলিস জানতে পেরেছে, রিয়ার আগে ফেসবুকের মাধ্যমে তাঁর মা রমার সঙ্গে আলাপ হয়েছিল সাদ্দামের। এমনকি রমার সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্কও ছিল।



তদন্তে পুলিস জানতে পেরেছে, রমার মাধ্যমেই রিয়ার সঙ্গে আলাপ হয়েছিল রিয়ার। সাদ্দামের জন্যই হলদিয়ায় ভাড়াবাড়িতে থাকছিলেন বিবাহবিচ্ছিন্না রমা। সেখানে মাঝেমধ্যে মায়ের কাছে যেতেন রিয়া। মুম্বই থেকে কলকাতায় আসার পর দূরশিক্ষায় মাধ্যমিকে ভর্তি  হয়েছিলেন রিয়া। সে কারণে হলদিয়ার মায়ের কাছে থাকতেন না। রিয়ার অনুপস্থিতিতে বিয়ের পরও সাদ্দামের সঙ্গে সম্পর্ক ছিল রমার। মায়ের সঙ্গে স্বামীর সম্পর্ক সম্ভবত জানতে পেরে গিয়েছিলেন রিয়া। জেরায় সাদ্দাম তা স্বীকারও করেছে। তবে সাদ্দামের বক্তব্য, রমা অন্য আর একজনের সঙ্গে সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েছিলেন। রিয়ারও এক বন্ধু জুটেছিল।





পুলিস সূত্রে খবর, ১৭ ফেব্রুয়ারি রাতে হলদিয়ার ভাড়াবাড়িতে মদের আসর বসেছিল। সেখানে যোগ দিয়েছিলেন রমা ও রিয়া। তবে রিয়া মদ খেতেন না। সম্ভবত দোকান থেকে কিনে আনা চাউয়ে মেশানো হয়েছিল ঘুমের ওষুধ। বেহুঁশ করার পর গলা টিপে খুন করা হয় মা-মেয়েকে। হলদি নদীর পারে দেহ দুটি পুঁতে দেওয়ার পরিকল্পনা করেছিল সাদ্দাম ও তার বন্ধুরা। সাদ্দামের দাবি, দেহ নড়ে ওঠায় তারা আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেয়। ময়নাতদন্ত অবশ্য বলছে, মা-মেয়েকে জ্যান্ত পোড়ানো হয়েছে।


Pages