২০১৭ স্মৃতি যাতে না ফিরে আসে সেজন্য ভাদুতলা স্কুল ক্যাম্পাসেই গড়ে উঠেছে নিবেদিতা সুলভ ক্যান্টিন - SAIKOTBHUMI

Breaking

Wednesday, August 14, 2019

২০১৭ স্মৃতি যাতে না ফিরে আসে সেজন্য ভাদুতলা স্কুল ক্যাম্পাসেই গড়ে উঠেছে নিবেদিতা সুলভ ক্যান্টিন



অভিষেক চক্রবর্তী ,পশ্চিম মেদিনীপুর  :- সালটা ছিল ২০১৭ মার্চ মাস। একটা আর্তনাদ। ব্যাস। সব শেষ। চোখের সামনেই পাঁচ পড়ুয়ার মৃত্যু। আহত আরো অনেকেই। আহতদের উদ্ধার করে স্থানীয় বাসিন্দারা হাসপাতালে পাঠাচ্ছেন। শালবনীর ভাদুতলাতে ২০১৭ তে এইরকম এক মর্মান্তিক পথ দুর্ঘটনার সাক্ষী থেকেছিল এলাকাবাসী। যে পাঁচ পড়ুয়া মারা গিয়েছিল তারা প্রত্যেকেই ভাদুতলা বিবেকানন্দ উচ্চ বিদ্যালয়ের পড়ুয়া। ঘটনাকে কেন্দ্র করে রণক্ষেত্র হয়ে উঠে এলাকা। তৎকালীন শালবনী থানার আইসি বিশ্বজিৎ সাহা কে রাজপথে ফেলে পেটায় উন্মত্ত জনতা। অভিযোগ ছিল পুলিশ তোলা আদায় করার জন্য একটি লরির পেছনে ধাওয়া করে। লরিটি দ্রুত পালিয়ে যাওয়ার সময় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে উলটে যায় একটি অটোর উপরে। সেই অটোতে করেই স্কুলে আসছিল পড়ুয়ারা।
সেই ঘটনার পুনরাবৃত্তি যাতে না ঘটে তার জন্য ভাদুতলা স্কুলের প্রধানশিক্ষক স্কুল চত্বরের মধ্যেই তৈরি করিয়েছেন নিবেদিতা সুলভ ক্যান্টিন। এখানে খাতা, কলম থেকে শুরু করে দুপুরের আহারের সমস্ত বন্দোবস্ত করা হয়েছে। উদ্দ্যেশ পড়ুয়াদের যাতে বাইরে যেতে না হয়। কারন বাইরে গেলেই পথ দুর্ঘটনার একটা ভয় থাকেই। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ডঃ অমিতেশ চৌধুরী বলেন, ২০১৭ সালের সেই মর্মান্তিক ঘটনা যাতে আর ফিরে না আসে তার জন্যই এই ক্যান্টিনের ব্যবস্থা। এই ক্যান্টিন চালু হওয়ার পর এখন প্রায় ৯০ শতাংশ পড়ুয়া আর বাইরে যাচ্ছে না। এখান থেকেই তাদের প্রয়োজনীয় জিনিস পেয়ে যাচ্ছে। এখনো ক্যান্টিন টি সম্পুর্ণ করা যায়নি। আশা করছি কিছু দিনের মধ্যেই সম্পূর্ণ করে দিতে পারলে আর কোনো পড়ুয়া বাইরে যাবে না। ক্যান্টিন চালু হওয়ার পর খুশী পড়ুয়া থেকে অভিভাবক সকলেই। তাদের বক্তব্য স্কুলের মধ্যেই প্রয়োজনীয় সব কিছু পেয়ে যাচ্ছি। আমাদের আর কষ্ট করে বাইরে যেতে হচ্ছে না। জঙ্গলমহলের  অন্তর্গত ভাদুতলা স্কুলেই প্রথম চালু হিয়েছে বিদ্যালয় চত্বরে ক্যান্টিনের ব্যবস্থা। ভাদুতলা স্কুলের এই ব্যবস্থা অন্যান্য স্কুলকে পথ দেখাবে বলেই মনে করেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক।

Pages