পারিবারিক অশান্তির জেরে আত্মঘাতী যুবক - SAIKOTBHUMI

Breaking

Wednesday, August 14, 2019

পারিবারিক অশান্তির জেরে আত্মঘাতী যুবক


সুমন বর্মন,দক্ষিণ দিনাজপুর: পারিবারিক অশান্তির জেরে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মঘাতী হলেন বছর ২৬ এর এক যুবক।  জানা যায় মৃত যুবকের নাম দিলীপ ভুইমালি। কৃষি কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করতেন তিনি। বাবার নাম মঞ্জুর ভুইমালি। বাড়ি মালদা জেলার বামনগোলা থানার মহেশপুর  এলাকায়। দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার বংশীহারী থানার অন্তর্গত মুরগামারি গ্রামের এক মহিলা রুমা ভুইমালি সাথে বিয়ে হয় এই ব্যক্তি র। মহিলার আগের পক্ষের একটি পুত্র সন্তান রয়েছে এবং এই পক্ষেরও একটি পুত্র সন্তান হয়েছে । ভোরবেলা রুমা ভুঁইমালির নজরে আসেন তার স্বামী বারান্দায় ফাঁস লাগিয়ে ঝুলে রয়েছে ঘটনাটি জানাজানি হতেই খবর দেয়া হয় বংশীহারী থানায়।ঘটনাস্থলে বংশীহারী থানার পুলিশ পৌঁছে মৃতদেহ উদ্ধার করে বালুরঘাট জেলা হাসপাতালে পাঠায় ময়না তদন্তের জন্য। পরিবার সূত্রে জানা যায়,বিয়ের পরই দিলীপ তার বাবার বাড়ি ছেড়ে শ্বশুর বাড়িতে বউকে নিয়ে থাকতো। অর্থাৎ স্বামী স্ত্রী ও দুই পুত্র সন্তানকে নিয়ে শ্বশুর বাড়িতেই তার সংসার। বিয়ের পরবর্তী সময়ে তাদের মধ্যে প্রায়ই অশান্তি দেখা দিত। একবার গ্রামের মাতব্বরদের দ্বারা বিচার শালিস করা হলে সাময়িক সময়ের জন্য এই অশান্তি মিটে যায় কিন্তু সেই অশান্তি ও ঝামেলা আবারো মাথাচাড়া দিয়ে ওঠে এবং এই অশান্তির জেরে বয়স 26 এর ঐ যুবক গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছে বলে সংশয় প্রকাশ করেছেন দিলীপের পরিবারের লোকেরা। কিন্তু এই ব্যাপারে ওই যুবকের স্ত্রী রুমা ভুইমালি সাথে কথা বলা হলে তিনি জানিয়েছেন কালকে বিকেল বেলা দুজন একসাথেই বাজারে  যায় এবং বাজার থেকে ফিরে এসে, রাত্রিবেলা এক সাথেই দুজনেই ছেলেদের নিয়ে ঘুমিয়ে যান কিন্তু কখন যে তার স্বামী উঠে গিয়ে ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছেন সেটা আমি বলতে পারছি না। যুবকের মৃত্যুর ঘটনা সত্যি কি আত্মহত্যাই নাকি খুন? ঘটনার পেছনে অন্য কোন রহস্য দানা বেঁধে রয়েছে কি?প্রশ্ন  এলাকাবাসী থেকে শুরু করে মৃতের শ্বশুরবাড়ির লোকেদের চোখে। ঘটনার পূর্ণাঙ্গ তদন্ত শুরু করেছে বংশীহারী থানার পুলিশ।

Pages