দামোদর নদীর রণডিহা ড্যামকে দীঘার আদলে সাজানোর উদ্যোগ - SAIKOTBHUMI

Breaking

Saturday, August 17, 2019

দামোদর নদীর রণডিহা ড্যামকে দীঘার আদলে সাজানোর উদ্যোগ



সঞ্জীব মল্লিক , বাঁকুড়া : রাজ্য সরকার দামোদর নদীর রণডিহা ড্যামকে দীঘার আদলে সাজানোর উদ্যোগ নিয়েছেন । মুকুটমনিপুর ও শুশুনিয়ার পর এই রণডিহা ড্যাম বাঁকুড়া জেলার পর্যটন মানচিত্রে জায়গা করে নিয়েছে । জেলা এবং জেলার বাইরের পর্যটকদের কাছে অন্যতম ডেস্টিনেশন হয়ে উঠছে এই ড্যামটি ।

তবে বর্ষা এলেই অন্যরকম রুপ ধারন করে দামোদর নদী । সাধারনত বর্ষার জলেই পুষ্ট দামোদর নদী । প্রতিবছর বর্ষা এলেই নদী ফুলে ফেপে ওঠে । আর সেই সময় দামোদর নদীর পাচির দিয়ে জল পড়তে থাকে । ফলে পাচিল প্রচণ্ড সিলিপে পরিণত হয় । একপ্রকার আতঙ্ক নিয়েই নদী পারাপার করতে হচ্ছে সাধারন মানুষকে । এছবি সোনামুখী থানার রাধামোহনপুর অঞ্চলের নিত্যানন্দ পুর গ্রামের দামোদর নদীর ।

এই দামোদর নদীর একদিকে রয়েছে বাঁকুড়া ও অন্যদিকে রয়েছে পূর্ব বর্ধমান জেলা । প্রতিদিন কয়েক হাজার মানুষকে কর্মের তাগিদে নদী পেরিয়ে পূর্ব বর্ধমান জেলায় যেতে হয় । ঠিক তেমনি পূর্ব বর্ধমান জেলা থেকেও বাঁকুড়ায় আসতে হয় বহু মানুষকে । বর্ষায় দামোদর নদীর এই ভয়ঙ্কর রুপের কবলে পরে বহু মানুষকে মারাত্মক বিপদের সম্মুখীন হতে হয়েছে ।

এই মুহূর্তে সাধারন মানুষের একটাই দাবি এই নদীর উপর দিয়ে একটি বেরেজ তৈরী করা হোক যাতে প্রতিবছর সাধারন মানুষকে এই রকম সমস্যার সম্মুখীন না হতে হয় । ব্রীজ হলে একদিকে যেমন যোগায়োগ ব্যবস্থার উন্নতি ঘটবে তেমনি অর্থনৈতিক দিক দিয়েও অনেকটা এগিয়ে যাবে দুই জেলার মানুষজন ।

এক নৃত্য যাত্রী পিনাকী রায় বলেন , আমরা খবই আতঙ্ক নিয়ে এই সময় নদী পারাপার করে থাকি । অনেক সময় নদীতে পরে অনেকেরই হাত পা ভেঙে গিয়েছে । সোনামুখীর এক বাসিন্দা সুপ্রীয় লোহার বলেন , আমরা দামোদর নদীতে বেড়াতে আসি কিন্তু এই বর্ষার সময় নদী পারাপার খুব আতঙ্কের হয়ে ওঠে । তাই সরকারের কাছে আমাদের বিশেষ আবেদন এখানে একটি বেরেজ বা ব্রীজ করা হলে খুবই উপকৃত হবো ।

সাধারন মানুষের এই সমস্যার কথা নিয়ে আমরা যোগাযোগ করি সোনামুখী ব্লকের পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি প্রণব রায়ের সঙ্গে । তিনি এই সমস্যার কথা স্বীকার করে আমাদের জানান , এটা একটা দীর্ঘ মেয়াদি সমস্যা । এটা রাজ্য সরকারের একার পক্ষে করা সম্ভব নয় । যদি কেন্দ্র সরকার রাজ্য সরকারকে সহযোগীতা করে তাহলে এই সমস্যার সমাধান হবে ।

Pages