মানস ভূঁঞ্যার র সমর্থনে এগরার সভায় নুসরত ও মন্ত্রী চন্দ্রিমা - SAIKOTBHUMI

Breaking

Thursday, April 25, 2019

মানস ভূঁঞ্যার র সমর্থনে এগরার সভায় নুসরত ও মন্ত্রী চন্দ্রিমা


সৈকতভূমি নিউজ ডেস্ক: গোটা ভারতবর্ষ জুড়ে মোদী সরকারের 'বেটি বাঁচাও বেটি পড়াও' প্রকল্পের বাজেট ১০০ কোটি টাকা।আর শুধুমাত্র বাংলার সরকারের মেয়েদের জন্য 'কন্যাশ্রী' প্রকল্পের বাজেট ৭ হাজার কোটি টাকা।পার্থক্যটা কোথায় আপনারা দেখুন।তাই আপনারা সঠিক নির্ণয়টা নেবেন।বৃহস্পতিবার মেদিনীপুর লোকসভার তৃণমূল প্রার্থী মানস ভূঁঞ্যার সমর্থনে পূর্ব মেদিনীপুরের এগরাতে  নির্বাচনী জনসভায় একথা বললেন বসিরহাটের তৃণমূলের তারকা প্রার্থী নুসরত জাহান।

ভিডিও দেখুন-



এ দিন তিনি বলেন, "যারা মিথ্যে কথা বলে বাংলার মানুষ কখনই তাদের পাশে থাকে না।গত পাঁচ বছর ধরে মোদী সরকার বাংলার মানুষের জন্য কিছু করেনি।নির্বাচনী ইস্তেহারে যা বলেছিল।সবই মিথ্যা।বাংলার মানুষের মুখ থেকে খাওয়ার কেড়ে নিয়েছে।ধর্মের নামে বিজেপি মানুষে মানুষে বিভাজন সৃষ্টি করেছে।" নুসরত জানান, "বিজেপির তিনটি গুণ- লুঠ, দাঙ্গা, আর মানুষ খুন।তাই আপনারা লুঠ, দাঙ্গার রাজনীতি চলতে দেবেন না।আমার বলতে খুব গর্ব হয় যে, আমরা সবাই এক।ধর্মের নামে আমাদের মাঝখানে কেউ বিচ্ছেদ করাতে পারবে না।ধর্ম মানুষের পরিচয় হয় না, কর্মই মানুষের পরিচয়।যে আপনাদের বিভাজন তৈরি করছে, আপনারা তাদের সুযোগ করে দেবেন না।বাংলার 'মা'র (মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়) পাশে থাকুন।বাংলায় মা-মাটি-মানুষকে হারানোর কারুর ক্ষমতা নেই।" রাজ্য তৃণমূলের সভানেত্রী ও মন্ত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য বলেন, "৪২-এ বিয়াল্লিশ।ইতিমধ্যে বাংলায় ১০টি কেন্দ্রের নির্বাচন সম্পন্ন হয়ে গেছে।আমরা ১০টিতে দশটা আসন পাচ্ছি।মানুষ এককাট্টা হয়ে দিদি'র পক্ষে ভোট দেওয়ার জন্য তৈরি।বাংলায় বিজেপি শূন্য।শূণ্য ছাড়া ওদের কিছু নেই।মোদী এখন ডেলি প্যাসেঞ্জার হয়ে গেছেন।পাঁচ বছর উনি শুধু বিদেশে ঘুরেছেন।কিছুই করেননি।" সেইসঙ্গে স্পীড ব্রেকার ও স্টীকারের তীব্র সমালোচনা করেন চন্দ্রিমাদেবী। সভায় ছিলেন এগরার বিধায়ক সমরেশ দাস, পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা তৃণমূলের সভাপতি অজিত মাইতি, এগরা শহর তৃণমূলের সভাপতি স্বপন নায়ক, যুব সভাপতি কৌস্তুভ দাস, এগরার পুরপ্রধান শঙ্কর বেরা, এগরা-১ ব্লক তৃণমূল সভাপতি সিদ্ধেশ্বর বেরা, এগরা-২ ব্লক তৃণমূল সভাপতি স্বরাজ খাঁড়া, এগরা-১ পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি অমিয় রাজ, এগরা-২ পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি দীনেশ প্রধান, জেলা পরিষদ সদস্য পার্থসারথি দাস, তৃণমূল নেতা জয়ন্ত সাউ,ছাত্র নেতা উদয় পাল প্রমুখ।

Pages