যুবককে পুড়িয়ে মারার অভিযোগে পুলিশ হেফাজত প্রেমিকা ও তার পরিবারের,জেল হেফাজতে বন্ধুরা - SAIKOTBHUMI

Breaking

Monday, February 25, 2019

যুবককে পুড়িয়ে মারার অভিযোগে পুলিশ হেফাজত প্রেমিকা ও তার পরিবারের,জেল হেফাজতে বন্ধুরা




সৈকতভূমি নিউজ ডেস্ক : ভূপতিনগর থানার খাঁঞ্জাদাপুরের যুবককে পুড়িয়ে মারার ঘটনায় প্রেমিকা সহ ৬জনকে সোমবার কাঁথি মহকুমা আদালতে হাজির করল পুলিশ। ধৃতদের মধ্যে প্রেমিকা ও তার বাবা,মা,ভাইকে ৫ দিনের পুলিশি হেফাজতের নির্দেশ দেন। পাশাপাশি ধৃত মৃতের দুই বন্ধুকে জেল হেফাজতের নির্দেশ দেওয়া হয় ।

আরো খবর পড়ুন-
কাঁথিতে ডাকাতির ঘটনায় গ্রেফতার ৩

      ভগবানপুর ২ ব্লকের বায়েন্দা গ্রামের বাসিন্দা পেশার সোনার গয়না মিস্ত্রী রঞ্জিৎ মন্ডল (২১)কে পিটিয়ে গায়ে পেট্রোল ঢেলে আগুনে পুড়িয়ে মারার অভিযোগের নেপথ্যে কি ত্রিকোণ প্রেমের তত্ত্ব, ঘটনার তদন্তে উঠে এসেছে এমনই এক চাঞ্চল্যকর তথ্য। পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, শনিবার ভোর রাতে ভূপতিনগর থানায় খবর আসে গ্রামের রাস্তার পাশে আগুনে পুড়ছে এক যুবকের দেহ। খবর পেয়েই দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে জল দিয়ে আগুন নেভায় পুলিশ। আর এর পরেই স্থানীয় বাসিন্দার অভিযোগ করেন, এই ঘটনার পেছনে রয়েছে স্থানীয় মদন মোহন মণ্ডলের পরিবারের।
                          ধৃত দুই বন্ধু।

 কারণ, মদনমোহনের মেয়ে সায়নীর সঙ্গে প্রণয়ের সম্পর্ক ছিল রঞ্জিতের। যা মেনে নিতে পারছিল না মেয়েটির পরিবার। এরই পাশাপাশি পুলিশ জানতে পারে, শুক্রবার অনেক রাত পর্যন্ত তিন বন্ধুর সঙ্গে ঘুরতে দেখা গিয়েছে মৃত রঞ্জিৎ। ঘটনার পরে পুলিশ মদনমোহন, তাঁর মেয়ে সায়নী, ছেলে সায়ন এবং স্ত্রীকে আটক করে পুলিশ। সেই সঙ্গে ছেলেটির ৩ বন্ধু অসিত দাস, সুমন ত্রিপাঠি এবং পবিত্র সিংহকেও আটক করে জেরা করছে পুলিশ। তদন্তে নেমে এই বন্ধুদের কাছ থেকে মৃত যুবকের মোবাইল ফোন উদ্ধার করেছে বলে পুলিশ সূত্রে খবর। পাশাপাশি মেয়েটির বাড়ি থেকে উদ্ধার হয়েছে ছেলেটির হাতের আঙটি।

আরো খবর জানুন নিচের লিঙ্কে ক্লিক করে।

 পূর্ব মেদিনীপুর জেলাজুড়ে ছেলেধরা গুজব নিয়ে কি বলছেন পুলিশ সুপার।

 এমন ঘটনাগুলি প্রকাশ্যে আসার পরেই ত্রিকোণ প্রেমের ইঙ্গিত পেতে শুরু করেছে পুলিশ। পুলিশের জেরায় আটক হওয়া ব্যক্তিরা ঘটনাটিকে আত্মহত্যার বলে দাবী করলেও পুলিশ কিন্তু সেই তত্ত্ব মানতে নারাজ। এদিকে হাসপাতাল সূত্রে খবর মৃত যুবককে শ্বাস রোধ করে খুন করে আগুন লাগিয়ে দেওয়া হয় প্রাথমিকভাবে চিকিৎসকরা জানতে পেরেছে। এছাড়াও প্রেমিকার পরিবার যদি খুন করে তাহলে তাঁর মোবাইল কিভাবে ওই বন্ধুদের কাছে গেল ? এমন সমস্ত প্রশ্ন খুঁজে বের করতে হিমশিম খাচ্ছে পুলিশ। যে বন্ধুরা শুক্রবার রাতে তাঁর সঙ্গে ছিল তাদের মধ্যেই কি কেউ মেয়েটির বর্তমান প্রেমিক কি না তাও খতিয়ে দেখছে পুলিশ ।

JOIN WHATSAPP GROUP 

                             ছবি ও তথ্য : কনিষ্ক মাইতি,
                    দেবাশিষ মাইতি,রাজা বন্দ্যোপাধ্যায়।

Pages