পঞ্চায়েত ভোটে কি কেন্দ্রীয় বাহিনীর পক্ষেই নির্বাচন কমিশন ! - SAIKOTBHUMI

Breaking

Tuesday, September 18, 2018

পঞ্চায়েত ভোটে কি কেন্দ্রীয় বাহিনীর পক্ষেই নির্বাচন কমিশন !




কলকাতা : এতদিন ধরে এই রাজ্যের বিরোধীরা যেভাবে একসুরে কেন্দ্রীয় বাহিনীর দাবী জানিয়ে শোরগোল ফেলে দিয়েছে, সেই দাবীকেই কি শিলমোহর দিতে চলেছে নির্বাচন কমিশন? 

বুধবার রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠির সঙ্গে রাজ্য নির্বাচন কমিশনার এ.কে. সিংয়ের সাক্ষাতের পর থেকে কেন্দ্রীয় বাহিনীর বিষয়টি আরও প্রকট হয়ে উঠেছে।

রাজ্যের প্রথমসারির একটি টিভি চ্যানেল ইতিমধ্যে প্রচার করতে শুরু করেছে, রাজ্য নির্বাচন কমিশন নাকি রাজ্যপালের কাছে কেন্দ্রীয় বাহিনীর পক্ষেই সওয়াল করেছেন।
ওই টিভি চ্যানেলের দাবী অনুযায়ী, নির্বাচন কমিশনার রাজ্যপালকে জানিয়েছেন, ভোট পরিচালনার সময় কেন্দ্রীয় বাহিনী দরকার পড়বে।

রাজ্যপালও ২৪৩কে (৩) ধারা মতে প্রয়োজনে কর্মী দেবেন বলেই নির্বাচন কমিশনকে স্বীকৃতি দিয়েছেন বলে সূত্রের খবর। রাজ্য নির্বাচন কমিশন নাকি শীঘ্রই রাজ্য সরকারকেও কেন্দ্রীয় বাহিনী চেয়ে চিঠি পাঠাবে বলে ওই চ্যানেল দাবী জানিয়েছে।

ইতিমধ্যে রাজ্যপাল ডেকে পাঠিয়েছেন মুখ্যসচিব মলয় দে এবং স্বরাষ্ট্র সচিবকেও। তবে এই দু'জনেই কেন্দ্রীয় বাহিনীর পরিবর্তে রাজ্য পুলিশ দিয়েই নির্বাচন করানোর পক্ষে সওয়াল করেছেন বলে খবর।
পাশাপাশি দুই সচিব রাজ্যের পরিস্থিতি নিয়ে বিরোধীদের দাবীকে নস্যাৎ করতে ইতিমধ্যে যে পরিমানে মনোনয়ন জমা পড়েছে তার পরিসংখ্যান দিয়েছেন রাজ্যপালকে। মনোনয়নের পরিসংখ্যান থেকে রাজ্যপালকে তাঁরা বোঝাতে চেয়েছেন, মনোনয়ন জমা করতে পারছেন না বলে যে প্রচার চলছে তা আসলে ঠিক নয়।

এরই সঙ্গে বুধবারই তৃণমূলের মহা সচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে ডেকে পাঠিয়েছিলেন রাজ্যপাল। তবে পার্থবাবু জানিয়ে দিয়েছেন, বৃহস্পতিবার তিনি দলের অন্যান্য নেতাদের নিয়েই তাঁর সঙ্গে দেখা করতে যাবেন।

যদিও পার্থ চট্টোপাধ্যায় বুধবারেও সাংবাদিকদের সামনে রাজ্যপালের অতিসক্রিয়তাকে কটাক্ষ করেছেন। তাঁর মতে, রাজ্যপাল এক দলের কথা শুনেই আসানসোল ছুটে যাচ্ছেন। বিরোধীদের কথা শুনেই সব ক্ষেত্রে অতি সক্রিয় হয়ে উঠছেন। এটা রাজ্যপালের সাংবিধানিক ক্ষমতার বাইরে বলেই তাঁর মন্তব্য। ইতিমধ্যে রাজ্যপালের ভূমিকা নিয়ে কেন্দ্রের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীর কাছে লিখিত ভাবে তৃনমূল অভিযোগ জানিয়েছেন বলেও খবর।

Pages